ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : মে ৩, ২০২০

একজন প্রবাসী সাহসী সাংবাদিক বেতাগীর কৃতি সন্তান রিয়াজ হোসেন

অনলাইন ডেস্ক

ইতালি প্রবাসী এমডি রিয়াজ হোসেন। বাড়ী বরগুনা জেলার বেতাগী উপজেলায়। প্রায় এক যুগ ধরে থাকেন প্রবাসে। ইতালির রোমে চাকুরীর পাশাপাশি সাংবাদিকতার নেশায় এখনও এই পেশাটি ধরে রেখেছে। নিউজ টোয়েন্টি ফোর টেলিভিশন ও বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার ইতালি প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করেন।রিপোর্ট৭১ এ নিয়মিত সংবাদ প্রেরন করে। চায়নার পরে করোনায় হানা দেয় ইতালিতে। শুরু হয় পুরো ইতালিতে করোনার তান্ডব। লক ডাউন ঘোষনা করে সরকার। সবাই যখন করোনা ভাইরাসের ভয়ে বাসায় অবস্থান করছে ঠিক তখন নিজের জীবনের ঝুকি নিয়ে সংবাদে খোজেঁ বাহিরে বের হন তিনি। ইতালির করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরতে ছুটে যান রোমের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে।
সংবাদকর্মী হিসাবে পুরো ইউরোপে আলাদা সুনাম রয়েছে তার।প্রবাসী সাংবাদিক রিয়াজ হোসেন বলেন যখন করোনা ইতালি হানা দেয় তখন বাংলাদেশ করোনায় কেউ আক্রান্ত হয়নি। দেশের মানুষ এবং প্রবাসীদের সতর্ক এবং সাহস যোগাতে কাজ করেছি।তুলে ধরেছি কি ভাবে করোনা মোকাবেলা করতে হবে। জানি সংবাদকর্মীদের কাজ ঝুকিপূর্ন। আমার দুই বছরের মেয়ে বাসায় থাকা অবস্থায় বার বার বাহিরে ছুটে গেছি করোনার সর্বশেষ আপডেট তথ্য আনতে। আমাকে নিয়ে চিন্তা করেনি তবে ভেবেছি মেয়েটার যদি কিছু হয়। স্বাস্থ্য কর্মী,পুলিশ,সংবাদ কর্মী এরা তো এই মহামারীতে বসে থাকতে পারে না। আমি আমার অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করেছি। তবে অনেক বানোয়াট এবং ভুল সংবাদে প্রবাসীরা বিভ্রান্তও হয়েছে অনেক বার।
উল্লেখঃ এমডি রিয়াজ হোসেন ২০০৩সালে বেতাগীতে সাপ্তাহিক বিষখালী পত্রিকার মধ্য দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। একাধিক জাতীয় দৈনিক ও আঞ্চলিক পত্রিকায় কাজ করেছেন উপজেলা প্রতিনিধি হিসাবে।বর্তমানে ইতালি বাংলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে রয়েছে।


আপনার মন্তব্য