ঢাকা, বুধবার, ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : জুন ১, ২০২০

এসএসসিতে ফেল ও জিপিএ-৫ না পাওয়ায় ৮ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ডেস্ক :

গতকাল রবিবার (৩১ মে) প্রকাশ পেয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল। এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ফেল ও জিপিএ-৫ না পাওয়ায় শরীয়তপুরে এক কিশোরী, ঝিনাইদহে কিশোর, শায়েস্তাগঞ্জে কিশোরী, শ্রীপুরে কিশোরী, ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে এক কিশোরী, লালমনিরহাটে এক কিশোরী, দিনাজপুরে এক কিশোরী ও জয়পুরহাটে এক কিশোর আত্মহত্যা করেছে।

শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলায় মোছাদিমা রহমান বর্ষা (১৭) নামে এক কিশোরী জিপিএ-৫ না পেয়ে ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (৩১ মে) বেলা পৌনে ১১টার দিকে উপজেলার গোসাইরহাট ইউনিয়নের বটনা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মোছাদিমা রহমান বর্ষা উপজেলার গোসাইরহাট ইউনিয়নের বটনা গ্রামের আব্দুল মতিন সরকারের মেয়ে। সে ইদিলপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে জিপিএ- ৪.৫০ পেয়েছে। এরপরও জিপিএ-৫ না পেয়ে আত্মহত্যা করে বর্ষা।
ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার শাহাবাজপুর গ্রামে এসএসসি পরীক্ষায় ‘সি’ গ্রেড পাওয়ায় আত্মহত্যা করেছে পিয়ারুল ইসলাম (১৭) নামের এক শিক্ষার্থী। রবিবার (৩১মে) দুপুর ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

সে ওই গ্রামের ঝন্টু মন্ডলের ছেলে এবং স্থানীয় খালিশপুর বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মানবিক বিভাগের ছাত্র ছিল। আগে এই শিক্ষার্থী স্কুলের এসএসসি টেস্ট পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছিল।

শায়েস্তাগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় মণি আক্তার (১৮) নামে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (৩১ মে) দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মণি আক্তার লাখাই উপজেলার বেগুনাই গ্রামের জামাল মিয়ার মেয়ে। সে মাদনা এসইএসডি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গোসিঙ্গা ইউনিয়নের নারায়নপুর গ্রামে এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় মানছুরা (১৬) নামের এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। নিহত মানছুরা সৌদি প্রবাসী হান্নান মিয়ার মেয়ে।

রবিবার (৩১ মে) বেলা ১২টার দিকে নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে সে আত্মহত্যা করে। মানছুরা ওই গ্রামের হান্নান মিয়ার মেয়ে। মানছুরা লতিফপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মানবিক বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নে রবিবার (৩১ মে) দুপুরে লিমা আক্তার (১৬) নামে এক শিক্ষার্থী ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। হরিপুর থানা পুলিশের ওসি মো. আমিরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সে ওই ইউনিয়নের তিনুয়া গ্রামের জহিরুল ইসলামের মেয়ে এবং হরিপুর দ্বিমুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলায় পর পর দুইবার এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় লাইজু আক্তার (১৭) নামের এক কিশোরী কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (৩১ মে) বিকেল সাড়ে ৫টায় হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার মৃত্যু হয়। এর আগে দুপুরে উপজেলার পাটিকাপাড়া ইউনিয়নের উত্তর পারুলীয়ায় ২নং ওয়ার্ডের নিজ বাড়িতে কীটনাশক পান করেন লাইজু।

সে ওই এলাকার জিল হকের মেয়ে। লাইজু পারুলিয়া তফসিলী উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের মানবিক বিভাগ থেকে ২০১৯ ও ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

এসএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে পাতা রায় (১৬) নামে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। সে চিরিরবন্দর উপজেলার ৭নং আউলিয়াপুকুর ইউনিয়নের ভাদ্রা গ্রামের দিলিপ রায়ের মেয়ে। সে শাশরপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল।

জয়পুরহাট জেলায় গণিতে ফেল করায় জয়পুরহাট সদর উপজেলার পুরানাপৈল দস্তপুর গ্রামে আবু সাঈদ (১৭) নামে এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (৩১ মে) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। আবু সাঈদ পুরানাপৈল দস্তপুর গ্রামের সরোয়ার হোসেনের ছেলে এবং শ্যামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মানবিক বিভাগের ছাত্র।


আপনার মন্তব্য