ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : জুলাই ২৯, ২০২০

কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

অনলাইন ডেস্ক

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :-

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলায় কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল রানা’র বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্যসংবলিত মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

বুধবার সকাল ১১ টায় কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাব’র হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের সামনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল রানা।

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন কলাপাড়া উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি মো. আখতারউর রহমান হারুন, মহিপুর সদর শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মাহবুব আলম সবুজ, কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সদস্য মেহেদী হাসান রাতুল ও গোলাম রাব্বানী সাগর প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা বলেন, গত ২৭ জুলাই সোমবার কলাপাড়া থানাধীন পাখিমারা গরুর বাজারে চাঁদাবাজীকে কেন্দ্র করে আমার বিরুদ্ধে যে মামলা করা হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। ওই দিন আমি রাঙ্গাবালী উপজেলায় ত্রাণ বিতরনের জন্য পটুয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্যের সফরসঙ্গী হিসাবে তার সাথে ছিলাম। যা পরের দিন দৈনিক যুগান্তর পত্রিকাসহ অনেকগুলো পত্রিকা ও অনলাইন পোর্টালের প্রতিবেদনে প্রমাণিত হয়। এসব প্রতিবেদনের ফুটেজে সংসদ সদস্যের পাশে আমার ছবি সংযুক্ত রয়েছ। তাহলে একজন ব্যক্তি একই সাথে দুই জায়গায় কিভাবে থাকতে পারে। ঘটনা স্থান হতে আমি পালিয়ে গিয়েছি বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

এবিষয়ে তিনি সংবাদ সম্মেলনে স্পষ্ট করে বলেন, ঘটনার দিন সকাল ৮ টার দিকে আমি এমপি মহোদয়ের সাথে কলাপাড়া ত্যাগ করে রাঙ্গাবালীর উদ্যেশ্যে রওয়ানা হই। তাহলে একই দিন সকাল সাড়ে এগারোটায় ঘটনাস্থল পাখিমারা বাজারে তিনি কিভাবে থাকতে পারেন সাংবাদিক মহলের মাধ্যমে বিষয়টি খতিয়ে দেখার দাবী জানান।

এছাড়াও মামলার ১ নং আসামি মো. আল-আমিনকে ঘটনাস্থল হতে নয় বরং ওইদিন সন্ধ্যা সাতটার দিকে তার নিজ বাড়ী হতে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। একইভাবে ২ নং আসামি মো. মাসুম পাখিমারা ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি বরাদ্ধকৃত ১০ কেজি ত্রানের চাল আনতে গেলে সেখানে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, আমার বড় ভাই ও ভাগিনাকেও মিথ্যা মামলার আসামি করা হয়েছে। আমার বড় ভাই ওই দিন লঞ্চযোগে ঢাকা হতে কলাপাড়ায় আসে। অথচ তাকেও এই মামলার আসামি করা হয়েছে।

কলাপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল রানা তার লিখিত বক্তব্যে আরোও উল্লেখ করে বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে একটি কুচক্রি মহল আমার নামে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে।

আমাকে ও আমার পরিবারকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য তারা বিভিন্নভাবে ওঠেপরে লেগেছে। অবশেষে পুলিশবাহিনী দিয়ে আমাকে হয়রানীর পায়তারায় লিপ্ত হয়েছে। তিনি সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী ও প্রতিবাদ জানান।


আপনার মন্তব্য