ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : জুন ২৭, ২০২০

কেডিসি এলাকায় সিটি প্লান ছাড়াই চলছে ভবন নির্মাণ

অনলাইন ডেস্ক

করোনা নিরবতায় তৎপরতা নেই বিসিসি’র




তালাশ প্রতিবেদক ॥




করোনা নিরবতায় বিসিসি’র উল্লেখযোগ্য তৎপরতা না থাকায় বরিশাল নগরীতে কোন ক্রমেই বন্ধ করা যাচ্ছে না অবৈধভাবে প্লানবিহীন ভবন নির্মাণ কাজ। নগরীর বিভিন্ন স্থানে অসাধু ব্যক্তিরা নিয়মনীতির কোন তোয়াক্কা না করেই অনুমোদন বা প্লান ছাড়াপত্র ছাড়াই গড়ে তুলছেন পাঁকা ভবন। শুধু তাই নয়, সীমানা প্রাচীর নির্মাণের ক্ষেত্রে সিটি এলাকার কোন নিয়ম পূর্নাঙ্গরূপে পালন না করার কারনে পরবর্তীতে নগরের উন্নয়নমূলক কর্মকা- পরিচালনার ক্ষেত্রে স্থানীয় নানা কোন্দল ও বিড়ম্বনার তোপ পোহাতে হচ্ছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের। তদারকির অভাবে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অনুমোদন নেয়াসহ বিভিন্ন দিকনির্দেশনা থাকলেও অনেকেই সেগুলোর কোনটাই সঠিকভাবে পালন করছে না। নিজেদের খেয়াল খুশিতে ইচ্ছেমতো পাকা ভবন নির্মান করছেন। বিভিন্ন সময়ে সিটি কর্পোরেশন অবৈধ ভবন নির্মানের বিষয়ে কঠোরতা অবলম্বন করলেও সময়ের পরিপেক্ষিতে তা স্থায়ীত্ব না হওয়ায় থামানো যাচ্ছেনা এ সকল ভবন নির্মান কাজ। এমনই অবস্থায় নগরীর কেডিসি পদ্মা ডিপো অফিসের পিছনে কোন রকম সিটি প্লান ছাড়াই অবৈধভাবে নির্মান করা হচ্ছে একটি পাঁকা ভবন। জানা গেছে, নগরীর ১০নং ওয়ার্ড কেডিসি পদ্মা ডিপো এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালাম ও লিজা দম্পতি অবৈধভাবে এই পাঁকা ভবন নির্মাণ করছেন। নগরীতে পাঁকা ভবন নির্মানের ক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশন থেকে যে সমস্ত নীতিমালা রয়েছে তা অনুসরণ ও অনুমোদন নেয়ার কথা থাকলেও তারা তা নেননি। বিশ^স্ত এক সূত্রে জানা যায়, একটি অদৃশ্য প্রভাবকে পুঁজি করে তাদের অপরিকল্পিত ও প্লান ছাড়া নির্মানাধীন অবৈধ এ ভবনের কাজ পরিচালনার ক্ষেত্রে কোন বেগ পেতে হচ্ছে না। সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা যায়, বাড়ির মূল ভবনের অবকাঠামো দাড় করাতে সিটি কর্পোরেশনের কোন নীতিমালা পালন করা হচ্ছে না। মুল সড়ক থেকে ড্রেনেজ ও সড়ক প্রশস্তকরণ ব্যবস্থার জন্য যে যতটুকু জায়গা ছেড়ে দিয়ে নির্মাণ কাজ করার কথা, তা না করে নিজেদেও ইচ্ছামতো মূল ভিত্তিপ্রস্থরের পাঁকা দেয়ালের কাজও চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। অনুমোদন না নিয়ে ওয়ার্ডে এমন নির্মাণ কাজ পরিচালনার বিষয়ে অবগত আছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় কাউন্সিলর আজকের তালাশকে জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে যতদূর জানি ঐ জমি নিয়ে কিছু সমস্যাও আছে। সিটি প্লান নাথাকার বিষয়ে তিনি বলেন, কর্পোরেশন থেকে এ বিষয়ে নির্দেশনা আসলে আমি অবশ্যই সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেব। এদিকে এ বিষয়ে আবুল কালাম আজাদের সাথে যোগাযোগ করতে তার ব্যবহৃত মুঠোফোন নম্বরে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায় ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর