ঢাকা, সোমবার, ১০ই আগস্ট, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : মার্চ ২৫, ২০২০

দুই নারীসহ নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিন বাংলাদেশির মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

দুই নারীসহ নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। দুই চিকিৎসকসহ শতাধিক প্রবাসীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আক্রান্তদের স্বজনরা এবং কমিটি নেতৃবৃন্দ এ তথ্য জানিয়েছেন।

সোমবার সন্ধ্যায় জ্যামাইকা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন মুন্সিগঞ্জের সন্তান আমিনা ইন্দ্রালিব তৃষা হাওলাদার (৩৭)। বেশ কদিন থেকেই হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছিল তাকে।
তৃষার আত্মীয় এবং ‘সাউথ এশিয়ান ফান্ড ফর এডুকেশন এ্যান্ড স্কলারশিপ’ নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রধান নির্বাহী মাজেদা এ উদ্দিন জানান, স্বামী বোরহান হাওলাদার এবং ৩ সন্তানসহ মাত্র দু’বছর আগে তৃষা জাপান থেকে নিউইয়র্কে এসেছিলেন। মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার শাসন গা গ্রামের সন্তান তৃষা জ্যামাইকায় একটি দোকানে হিজাব বিক্রি করতেন।

অপরদিকে, ২৪ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় আব্দুল বাতেন নামক ৬০ বছর বয়সী আরেক বাংলাদেশি কুইন্সের এলমহার্স্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার পর শ্বাসনালী ফেটে গিয়েছিল বলে পরিবারের সদস্যরা জানান। তার বাড়ি নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলায়।

তার পরিবারের সকল সদস্য একই ভাইরাসে আক্রান্ত বলে এ সংবাদদাতাকে জানিয়েছেন বৃহত্তর নোয়াখালী জেলা সোসাইটির সেক্রেটারি জাহিদ মিন্টু।

মিন্টু উল্লেখ করেন, বাতেনের লাশ দাফনের জন্য আমরা কর্তৃপক্ষের অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছি। অপরদিকে, তৃষার লাশ দাফনের ব্যাপারে ২৪ ঘণ্টা পরও কর্তৃপক্ষের অনুমতি মেলেনি বলে জানিয়েছেন মাজেদা এ উদ্দিন।

ব্রুকলীনে ব্রুকডেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার সন্তান রোহেনা আকতার। তার এক ভাগ্নেও চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও রোহেনা (৪৩) বাঁচতে পারলেন না। ২৪ মার্চ দুপুরে তার মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা কাজী আজম জানান, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট খালেক আকন্দ করোনায় আক্রান্ত হয়ে ব্রুকলীনে ব্রুকডেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। খালেকের ছেলে চিকিৎসা নিচ্ছেন জ্যামাইকা হাসপাতালে।

কাজী আজম আরো জানান, ব্রুকডেল হাসপাতালের চিকিৎসক এবং যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা মজিবর রহমান মজুমদার বর্তমানে ‘কোয়ারেন্টাইনে’ রয়েছেন নিজ বাসায়। রোগীর সেবা করতে গিয়ে নিজেও আক্রান্ত হয়েছেন। একইভাবে ডা. আতাউল ওসমানী নামক আরেকজন বাংলাদেশি চিকিৎসক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন বলে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন।

নিউইয়র্ক সিটির ব্রুকলীন, কুইন্স, ব্রঙ্কস, ম্যানহাটানের বিভিন্ন হাসপাতালে শতাধিক বাংলাদেশি চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সকলের জন্যে প্রবাসীদের দোয়া চেয়েছেন বিএনপি নেতা কাজী আজম।

এদিকে, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা এবং নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা করোনা পরিস্থিতিতে প্রবাসীদের খোঁজ-খবর রাখছেন। সকলকে সতর্কতা অবলম্বন এবং কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী বিশেষ জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না যাবার পরামর্শ দিয়েছেন।


আপনার মন্তব্য