ঢাকা, বুধবার, ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম
প্রকাশ : জুলাই ১৮, ২০২১

বাকেরগঞ্জে পৈত্রিক সম্পত্তি কবরস্থানসহ বসতবাড়ি জবরদখলের অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক

talash

বিএফ খান সবুজ, বাকেরগঞ্জ॥ পৈত্রিক সম্পত্তি কবরস্থান সহ বসতবাড়ি জবরদখল অভিযোগ বাকেরগঞ্জের গারুড়িয়া ইউনিয়নের বালিগ্রামে।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার মোঃ সাখাওয়াত হােসেন খান , পিতা- মৃত আলী আহম্মেদ খান , সাং- বালিগ্রাম ০৬ নং ওয়ার্ড , ১০ নং গারুড়িয়া ইউনিয়ন , থানা- বাকেরগঞ্জ , জেলা- বরিশাল। স্থানীয় বাকেরগঞ্জ থানায় আসিয়া লিখিত ভাবে একটি সাধারণ ডায়েরি অন্তর্ভুক্ত করে বাকেরগঞ্জ উপজেলা গণমাধ্যম এর নিকট অবহিত করেন যে , আমাদের বসত বাড়ি ও বাগান নিয়ে ইতিপূর্বে মােঃ আহসান কবির খান গংদের সাথে বিরোধীয় সম্পত্তির দীর্ঘদিন যাবত মালিকানা হয়ে জমির ভােগ দখলে আছি ।

বিগত ২০০৩ সালে আহসান কবির খান গংদের সাথে একটি দেওয়ানী মােকদ্দমা দাখিল করি । বিজ্ঞ আদালত চুলছেড়া বিশ্লেষন করে গত ০১/১২/২০১৯ তারিখে উক্ত সম্পত্তির মােদ্দমার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত একটি স্থগিতাদেশ প্রার্থনা করিলে ০৬/১২/২০২০ ইংরেজি তারিখে বরিশাল জেলা সিনিয়র সহকারী জজ বাকেরগঞ্জ বরিশাল উক্ত বিবাদীদের নিকট হইতে হয়রানির শিকার সাখাওয়াত হোসেন খানের করার আবেদন মঞ্জুর করেন ।

উল্লেখিত , উক্ত মামলার বিবাদীগন উৎশৃংখল এবং দস্যু স্বভাবের বটে । উক্ত সম্পত্তির জোর জবর দখল করার জন্য নানান ধরনের পেশি শক্তি সহ লােক চক্ষুর অড়ালে কু – কর্ম করার সক্ষমতা নিয়ে খুন জখম করে উক্ত সম্পত্তির দখল নেওয়ার নানা অপকৌশল অবলম্বন করে এবং আমার বাগানের রক্ষিত নারিকেল , আনারস , কাঠাল সহ মৌসুমী ফসল দস্যু বাহীনি নিয়ে উত্তলন করে নিয়ে যায় যাহার ভিডিও চিত্র মোবাইল ফোনে ধারন করা হয়। ইতি পূর্বে নিন্ম আদালতের আদেশ অনুযায়ী মােঃ আহসান কবির খান গংদের নামে ১২০ শতাংশ সম্পত্তি ও আমাদের নামে ৮০ শতাংশ সম্পত্তি ভােগ দখলের আদেশ প্রদান করেন । আদালতের আদেশকে সন্মান প্রদর্শন করে ৮০ শতাংশ জমিতে আমরা ভােগ দখলে আছি , কিন্তু মােঃ আহসান কবির গং আদালতের আদেশকে অমান্য করে ইং ১০ / ০৭ / ২০২১ ইংরেজি তারিখ বাকেরগঞ্জ থানায় হাজির হইয়া আমাদের পরিবারের উপস্থিত অনপুস্থিত সদস্যদের বিরুদ্ধে একটি মন গড়া অভিযােগ পত্র দাখিল করে যাহা অসত্য ভিত্তিহীন ।

ইতি পূর্বে বিবাদী পক্ষ সালিশ মীমাংসা এবং আন্তরিকতার প্রকাশ দেখিয়ে উক্ত সম্পত্তির দেওয়ানী মােকদ্দমার বিবাদী পক্ষ আন্তরিকতার ছলনা করে আদালতে আমাদের কে অনুপস্থিত রেখে মৌখিক সমঝােতার কথা বলে একতরফা পিতা মরহুম মােজাম্মেল হক খান এর অবর্তমানে আমি আমাদের বিরুদ্ধে বে দখলের নামে একটি অভিযােগ আনিয়া আদালতের রায় পাওয়া ৮০ শতাংশ সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে নতুন সীমানা পিলার স্থাপন করে।

যাহা আমাদের জান মালের জন্য হুমকির সমূখীন হই। এমত অবস্থায় থানা অফিসার ইনচার্জ আলাউদ্দিন মিলনের নিকট বিষয়টি অবহিত করলে চলমান ঘটনাবলী বিশ্লেষণ এর ভিত্তিতে নিরপেক্ষ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন বালিগ্রাম এর ঘটে যাওয়া ঘটনার সচিত্র প্রতিবেদন করতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে বিবাদী গণমাধ্যমে অভিযোগকারী সাখাওয়াত হোসেন গং আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী উক্ত ৮০-শতাংশ জমির সরোজমিন বাগানবাড়ি বানাইয়া ও পুকুর কাটিয়া বীজ বৃক্ষ রোপন করিয়া ভোগ দখলে রয়েছে।
অপরদিকে বিবাদী আহসান কবির গংদের ১২০-শতাংশ সম্পত্তি প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী বন্ঠনের মাধ্যমে তাহারা আলাদা ভোগ দখলে রয়েছে দীর্ঘদিন যাবত। বিবাদী পক্ষ অসাধু মানুষের কু প্ররোচনায় প্রভাবিত হয় আমাদের ব্যবহৃত দীর্ঘদিন যাবত বসতবাড়ি বেদখলের জন্য পাঁয়তারা করে আসছেন এ ব্যাপারে যথা উপযুক্ত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।


আপনার মন্তব্য