ঢাকা, রবিবার, ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম
প্রকাশ : এপ্রিল ৪, ২০২১

লঞ্চডুবি: ৫ নারীর লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

নারায়ণগঞ্জ ও বন্দর প্রতিনিধি ॥ নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে রাফিত আল হাসান নামে মুন্সিগঞ্জগামী একটি লঞ্চ প্রায় ৪৬ জন যাত্রী নিয়ে ডুবে গেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৫ নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১১ জনকে।তবে তাদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে শীতলক্ষ্যা নদীর চর সৈয়দপুর এলাকার ব্রিজ সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে।এর আগে বিকাল ৫টা ৫৫ মিনিটে লঞ্চটি নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জের দিকে রওনা দেয়। এসকে ৩ কোস্টার জাহাজের ধাক্কায় এটি ডুবে যায়।

রাতে একে একে ৫ নারী যাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়।এছাড়া এখন পর্যন্ত ১১ যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ২০ জন সাঁতরিয়ে তীরে উঠতে পারলেও আরও অন্তত ১০ যাত্রী এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।

বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা জানান, রাতে পাঁচ নারী যাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।এ ছাড়া ১১ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা লঞ্চ উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছে।পুলিশ ও নৌ পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধার কাজ অব্যাহত রেখেছে। শুরুতে ঝড়ের কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হয় বলে জানান ওসি।

লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি বদিউজ্জামান বাদল সংবাদিকদের জানান, লঞ্চটি সন্ধ্যা ৬টার কিছু সময় পর নারায়ণগঞ্জ ছেড়ে যায়। পথিমধ্যে ঝড়ের কবলে পড়লে এটি দুর্ঘটনার শিকায় হয় এবং অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়।

নারায়ণগঞ্জ নৌপুলিশের ইন্সপেক্টর শহিদুল ইসলাম জানান, একটি শীতলক্ষ্যা নদীতে চায়না ব্রিজের নিচে সাবিত আল হাসান নামের একটি লঞ্চ ডুবেছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেকসহ অন‍্যান‍্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন।রাতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটির অবস্থান চিহ্নিত করে নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড ও বিআইডব্লিউটিএ উদ্ধার কাজ অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে দুর্ঘটনার কারণ উৎঘাটনে বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক) মো. রফিকুল ইসলামকে প্রধান করে ৪ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

error: Content is protected !!