ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

শুদ্ধাচার পুরস্কার-২০২০ পেলেন বাকেরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাধবী রায়

অনলাইন ডেস্ক

বিএফ খান সবুজ, বাকেরগঞ্জ ॥ শুদ্ধাচার পুরস্কার-২০২০ পেলেন বাকেরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাধবী রায়। মাধবী রায় বাকেরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনে যোগদান করার পর থেকেই এখানকার মাটি ও মানুষের সাথে মিলে একাকার হয়ে সকলের সুখ দুঃখের সমবেদী হয়েছেন। মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট চির কৃতজ্ঞতা এবং বাকেরগঞ্জ উপজেলার আপামর সর্বসাধারণ সর্বোপরি বরিশাল জেলা প্রশাসকের সার্বিক সহযোগিতায় সদা সর্বদা পরিশ্রমের স্বীকৃতিস্বরূপ এর পুরস্কার অর্জন করেন। যেহেতু বাকেরগঞ্জ উপজেলায় যোগদানের পরে এই পুরস্কার অর্জন করেছেন সেহেতু এখানকার স্মৃতি মাধবী রায়ের অন্তরের মনিকোঠায় স্থান করে নিয়েছে এবং চিরকাল স্মৃতি হয়ে অন্তরে গাঁথা থাকবে।

২০২০-সালকে মুজিব বর্ষ ঘোষণা দেওয়ার প্রাক্কালে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও করোনাভাইরাস এর মত মহামারীতে আক্রান্ত হয়। দেশের এমন অন্তিম ক্লান্তিকালে বাকেরগঞ্জ উপজেলার সর্বসাধারণের প্রতি সার্বিক সহযোগিতা প্রদানে ২৪-ঘন্টা সেবা কার্যক্রম চালু রেখে স্ব-শরীরে সরকারের অনুদান সর্বপ্রকার ত্রাণ সামগ্রী সহ নানান ধরনের বন্যা সহ সকল প্রতিকূল আবহাওয়া মোকাবেলা করে নিজেও করণায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। মুজিববর্ষের ঘোষণা কে সামনে রেখে সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে এবং রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের স্বীকৃতিস্বরূপ বরিশাল জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমান বাকেরগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মাধবী রায়কে এ সম্মাননা সনদ প্রদান করেন।

নির্বাহী কর্মকর্তা মাধবী রায় বলেন, যে কোন স্বীকৃতি কাজের উৎসাহকে তরান্বিত করে। কর্মক্ষেত্রে অতীতের মত সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করি। পুরস্কার গ্রহণ করে মিস কর্মস্থানের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সর্বসাধারণের ও সকল ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত গুণাবলি হলো- কর্মচারীর পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা, সততার নিদর্শন স্থাপন করা, নির্ভরযোগ্যতা ও কর্তব্যনিষ্ঠা, শৃঙ্খলাবোধ, সহকর্মীদের সঙ্গে আচরণ, সেবাগ্রহীতার সঙ্গে আচরণ, প্রতিষ্ঠানের বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা, সমন্বয় ও নেতৃত্বদানের ক্ষমতা, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে পারদর্শিতা, পেশাগত স্বাস্থ্য ও পরিবেশবিষয়ক নিরাপত্তা সচেতনতা, ছুটি গ্রহণের প্রবণতা, উদ্ভাবনী চর্চার সক্ষমতা, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে তৎপরতা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার, স্বপ্রণোদিত তথ্য প্রকাশে আগ্রহ, উপস্থাপন দক্ষতা, ই-ফাইল ব্যবহারে আগ্রহ, অভিযোগ প্রতিকারে সহযোগিতা করা।


আপনার মন্তব্য

error: Content is protected !!