হিজলা উপজেলা প্রশাসনের ভিন্নধর্মী প্রচারনা

ধান, নদী, খাল এই তিনে বরিশাল। তারই ধারাবাহিকতায় বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার মেঘনা নদীর পয়েন্টকে মৎস্য অভয়াশ্রম হিসেবে নির্ধারন করা হয়েছে। ১লা মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ২ মাস মেঘনা নদীর হিজলা পয়েন্ট থেকে কোন মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। মৎস্য রক্ষার্থে বিভিন্ন ভিন্নধর্মী প্রচারনার দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে উপজেলা প্রশাসক জনাব বকুল চন্দ্র কবিরাজ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব বকুল চন্দ্র কবিরাজের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন যে, মেঘনা নদীর হিজলা পয়েন্টে মৎস অভয়াশ্রমে যেন জেলেরা ২ মাস মাছ ধরা থেকে বিরত থাকে সেজন্য ৫টি ইউনিয়নে জেলেদের মাঝে ৬২০ মেট্রিক টন চাল বিতরনের কাজ চলমান রয়েছে। আমরা ইতোমধ্যে প্রতিটা ইউনিয়নে মাইকিং করে জেলেদের সতর্ক করে দিয়েছি। আমরা নদীতে কর্কসিটের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের ফেস্টুন তৈরি করে নদীতে ভাসিয়ে দিয়েছি যাহাতে জেলেরা সতর্ক থাকে।
১লা মার্চ থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত মোট ১২২ জন জেলেকে আটক করা হয়। তার মধ্যে ১১৮ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও ৭ জনকে অর্থদন্ড করা হয়। অভিযানের সার্বিক সহযোগীতা করেন সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবদুল হালিম, হিজলা থানা পুলিশ, নৌ-পুলিশ হিজলা, কোষ্টগার্ড হিজলা। তিনি বলেন আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত এ অভিযান অব্যহত থাকবে।

error: Content is protected !!