ঢাকা, সোমবার, ৬ই এপ্রিল, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : অক্টোবর ২৯, ২০১৯

কুড়ি বছরেও সংস্কার হয়নি শায়েস্তাবাদের রাস্তাটি,খানা-খন্দে ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

অনলাইন ডেস্ক

 

বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের শায়েস্তাবাদ বাজার থেকে হবিনগরের রাস্তার বেহাল দশায় চরম ভোগান্তিতে রয়েছেন এলাকাবাসী।স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, রাস্তাটি ১৯৯৪ সালে হেরিংবন হলেও কুড়ি বছরে কোন সংস্কার করেনি জনপ্রতিনিধিগন।যার ফলে রাস্তাটির খান-খন্দে চরম ভোগান্তিসহ বিভিন্ন দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন এ অঞ্চলের এলাকাবাসী।সাবেক ইউ সদস্য জনাব মোঃগোলাম রসূল বলেন,১৯৯৪-৯৫ সালে এই রাস্তাটি হয়। দীর্ঘ বিশ বছর চলছে এই পর্যন্ত তবে রাস্তাটির আর কোন সংস্কার বা মেরামত হয়নি।এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার লোক চলাচল করে,রাস্তাটির বর্তমান অবস্থা খুবই বিপদ জনক। এখান থেকে অটোরিক্সা, আলফা,মটরসাইকেল,ভেনগাড়ি, চলাচল করে,যা প্রতিনিয়ত দর্ঘটনার শিকার হন। জরুরি কোন রুগি নিয়ে হাসপাতালে যাওয়াটা ও অসম্ভব হয়ে দাড়িছে।আমরা শুনি বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নমূলক কাজ করছে।২০বছর আগে এই রাস্তাটির কাজ হলেও আজ পর্যন্ত স্হানীয় কোন জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটির সংষ্কার বা মেরামত কাজ করছে না।আমরা একালাবাসী চাচ্ছি অতিদ্রুত রাস্তাটির মেরামত করা হোক।স্থানীয় বাসিন্দা জনাব ড.মোসলেম আলী জানায়,আমরা কি আর বলবো? এ যাবত স্হানীয় প্রতিনিধিদের কাছে বারংবার বলা হইছে রাস্তাটির বিষয় কিন্তুু তারা কোন ধরনের পদক্ষেপ নেননি।হাজার হাজার মানুষের চলাচলের পথ। শত শত স্কুল,কলেজ,মাদ্রসায় ছাত্র ছাত্রী এই পথ দিয়ে গাড়িতে যাওয়াটা ঝুকি হয় বিদায় তাদের হেটে যেতে হয় গন্তব্য ।এই অবস্থা স্থানীয় প্রতিনিধিদের চোখে পড়া সত্তেও কোন ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাই আমরা এলাকাবাসী কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকার্ষন করছি।স্থানীয় আর এক বাসিন্দা মোঃ ফারুক হাওলার বলেন,এই রাস্তাটির বর্তমান বেহাল দশা এটা সবার কাছেই স্পষ্ট। রাস্তাটি দিয়ে গাড়ি চলাচল করতে পারছে না।মানুষ চলাচল করাটাও ঝুকি হয়ে দাড়িয়েছে।গাড়িতে করে জরুরি কোন রুগি নিয়ে হাসপাতালে যাবে, এ ক্ষেত্রে কোন গাড়ি এই রাস্তায় যাতায়াত করতে চায় না।গাড়ির ড্রাইভাররা এই রাস্তার কথা শুনলে আর তারা যেতে চাই না।অতএব আমরা জোর আবদার করছি এলাকাবাসীর দিকে তাকিয়ে অতিদ্রুত রাস্তাটির উন্নয়মূলক কাজ শুরু করার।এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান জনাব আরিফুজ্জামান মুন্না জানায়,ইউনিয়ন পরিষদে যে পরিমান বাজেট আসে তা দ্বারা বড় ধরনেন কোন কাজ করানো সম্ভব নয়।আমি জানি ইউনিয়নের কিছু রাস্তার সমস্যা আছে,সেগুলোর ব্যাপারে আমরা তদবীর করছি।তবে দুই মাস আগে এলজিডির কাছে শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের বারটি রাস্তার জন্য আবেদন করা হয়েছে। আশা করি সেখান থেকে বাজেট পাবো।সেখান থেকে কাজের অনুমোদন পেলেই অতিদ্রুত এই সব রাস্তাগুলোর উন্নয়মূলক কাজ করা হবে।


আপনার মন্তব্য