ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ঠা জুন, ২০২০ ইং

শিরোনাম
প্রকাশ : অক্টোবর ৪, ২০১৯

আতঙ্কের আরেক নাম রাতের বরিশাল! (পর্ব -৪)

অনলাইন ডেস্ক

 

আতঙ্ক মানুষের মৃত্যুর কারন হতে পারে, সেই আতঙ্ক যদি জাগে তরুনীর মনে তবে তার জীবন হয়ে দাড়ায় দুর্বিসহ । দৈনিক আজকের তালাশের বিশেষ প্রতিবেদন “আতঙ্কের আরেক নাম রাতের বরিশাল”। এই টিমের একজন নারি সদস্যের কাছে এক তরুনীর দেখা লিঙ্গ প্রদর্শণির বাস্তব গল্প তুলে ধরেন।
বর্ননা :-
বরিশালের ঝালকাঠীতে রাতের বেলায় পাখিকে ( ছদ্দ নাম ) ৫/৬ জন যুবক লিঙ্গ পরিদর্শন করে ।গ্রামের মেয়ে পাখি নিজেকে স্টাবলিস্ট করতে ঝালকাঠীর মহিলা কলেজে ভর্তি হন তিনি । পরিবার পরাশুনার খরচ চালাতে হিমশিম খাচ্ছে । তাদেরকে সাহায্য করতে টিউশনির পথ বেছে নেয় পাখি । প্রতিদিনের মতো ২৯ সেপ্টেম্বর বাসা থেকে বের হয় তিনি । ছাত্রের বাসা থেকে বের হতে ঘড়িতে বেজে যায় রাত ১০ টা ।সেদিন
ঝালকাঠীতে মাহফিলের কারনে হাজারো মানুষের সমাগম। তাই ফকির বাড়ির মসজিদ , তরকারি পট্টির ভিতর থেকে রওনা দেন পাখি । কিছুদুর যেতেই দেখতে পান ৫/৬ জন যুবক (বয়স ২২/২৩) দাঁড়িয়ে নেশা করছে কিছুটা ভয় হলেও উপায় নেই বাসায় পৌঁছাতেই হবে । না হয় রুমমেটরা অন্য কিছু ভাববে । এসব কথা ভাবতে ভাবতে পাখি যুবকদের কাছা কাছি আসলে দেখতে পান তারা সকলেই পেন্টের চেন খুলে খারাপ ইশারা করে । পাখি ভয়ে উল্টো দৌঁড় দিলে একজন হিন্দু ধর্মালম্বি মধ্য বয়সি পুরুষ তাকে পথরোধ করে বলেন, আমার সাথে এসো। পাখি তখন তার সাথে বাসা পর্যন্ত যায়।

বি:দ্র: মেয়েটির পরিচয় গোপন রাখা হলো । কারন মেয়েটির পরিচয় বড় কথা নয় । আপনারা ভাবুন হয়তো মেয়েটি দেশে ঘটে যাওয়া যেকোনো একটি ধর্ষনের ঘটনার শিকার হতে পারতো ।
পাখি বলেন, আজ আমি আল্লাহর রহমতে বেঁচে গেছি । বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে অপরাধ কমেছে । কিন্তু প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তা তার কথাকে সঠিক ভাবে মানছেনা । যদি মানতোই তবে কিভাবে ঝালকাঠী সদরের মতো একঠি জায়গায় ওপেনে মাদক সেবন করে । আমরা মেয়েরা স্বাধীন ভাবে কোনোদিনই চলতে পারবেনা ? আমিতো জীবিকার তাগিদে বেরিয়ে ছিলাম, আমার দোষ কোথায় ? মেয়ে হয়ে জন্মানোটাই কি আমার দোশ? প্রশাসনের উর্দ্বতন কর্ম-কর্তাদের কাছে একটাই দাবি আর কারো সাথে এমনটা জেনো না হয়।


আপনার মন্তব্য